যেকোনো সাইজের ফাইলকে ইচ্ছামত ভাগ করুন [File Split Technic]

বড় সাইজের ফাইল ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে অনেক সমস্যার মুখমুখি পড়তে হয়। ধরা গেলো একটা ফাইলের সাইজ ১৫০ জিবি। এখন এটিকে ত একবারে ট্রান্সফার করানো সম্ভব নয়। এর বিশেষ কারন হলো আমরা সবাই ৩২ অথবা ৬৪ জিবি পেনড্রাইভ ব্যাবহার করে থাকি। খুব কম সংখ্যক মানুষ আছে যাদের ১২৮ অথবা ২৫৬ জিবির পেনড্রাইভ রয়েছে। কিন্তু ফাইল সাইজ যদি ৫০০ জিবি হয়? তখন মানুষ সমস্যায় পড়ে। বড় ফাইল সেন্ড করতে গিয়ে নানান সমস্যায় পড়তে হয়। 

আজকে তারই একটা সহজ সমাধান নিয়ে আপনাদের সামনে আলোচনা করবো। আশাকরি সম্পূর্ন সময় টা আপনারা আমার সাথে থাকবেন।

ধরুন আপনি আপনার বন্ধুকে একটি গেমস দিতে চান কিন্তু আপনার কাছে শুধু মাত্র পেনড্রাইভ আছে গেমস টি দেওয়ার জন্য। গেমস এর সাইজ ৬০০ জিবি কিন্তু আপনার পেনড্রাইভের স্টোরেজ ৬৪ জিবি। এখন আপনাকে ৬০০ জিবিকে ভাগ করে নিতে হবে। তারপর একটা একটা করে আপনি পেনড্রাইভে করে বন্ধুর পিসিতে দিবেন। এবার একটা সোজা হিসেবে চলে আসুন । ৬০০ জিবির ফাইল ৬৪ জিবির পেনড্রাইভে করে নিতে হলে ফাইল টিকে কতভাগে ভাগ করে নিতে হবে। ৬০০/৬৪= ১০ ভাগ করলে আপনি ১০ বারে ফাইল টিকে আপনার বন্ধুর কম্পিউটারে নিতে পারবেন। 

এখন ঘটনা হচ্ছে অনেকেরই মনে প্রশ্ন জাগবে , এব বড় ফাইল কে ভাগ কিভাবে করবো। এটা ত তরমুজ না যে বটি দিয়ে কেটে ভাগ ভাগ করে ফেল্লাম। এটা একটা ফাইল। সেজন্য আমরা Win RAR সফটওয়ারটা ব্যাবহার করবো। এটা দ্বারা ফাইলটাকে জিপ করবো। এবং জিপ করার সময়ই অপশন থেকে ফাইলের সাইজ টা আমরা ফিক্স করে দিবো যদি ৬৪ জিবির পেনড্রাইভ হয় তাহলে আমরা ৬০ জিবি আকারে ভাগ করবো। তারপর ফাইল কমপ্রেস করবো। তখন ফাইলটাকে ১০ ভাগে কমপ্রেস হয়ে ভাগ হয়ে যাবে। তখন আমরা প্রতিটি খন্ড কে অন্য পিসিতে ট্রান্সফার করবো । এরপর যেই পিসিতে ট্রান্সফার করা শেষ হবে। সেই পিসিতে ১০টা খন্ডকে একসাথে একই ফোল্ডারে রাখতে হবে। তারপর Win RAR ব্যাবহার করে প্রথম পার্টটাকে Extrac করলেই পুরো মেন ফাইলটাতে পরিনত হবে। দেখবেন তখন মেন ফাইল টা সামনে আসবে। তবে কোনো পার্ট যদি মিসিং থাকে তাহলে কিন্তু Extrac ফেইলড আসবে। এবং আপনি ফাইলও পাবেন না। তাই কোনো পার্ট যেন মিসিং না হয় সেটার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। 

তার আগে একটা জিনিস বলে রাখি। অনেকেই এই Win RAR সফটওয়ারটি সম্পর্কে জানেন  না তারাও এই সটওয়ারটি সম্পর্কে জেনে নিবেন। এটি মূলত ফাইল কমপ্রেস সফটওয়ার। ফাইল কমপ্রেস করাই এর কাজ। এবং এটি যে কোন ফাইলকে বিভিন্ন একটেনশনে রুপান্তর করতে পারে। এবং যেসকল এক্সটেনশনে ফাইল ক্ষতিগ্রস্থ হয় না সেগুলোতে আপনার ফাইলতে রুপান্তর করতে পারে। যেমন যদি RAR ফাইল এক্সটেনশনে ফাইল রুপান্তর করা হয় এটা ভাইরাস ক্ষতিগ্রস্হ করতে পারবে না। এছাড়া আপনি যদি কোনো ফাইলে পাসওয়ার্ড দিয়ে এনক্রিপশন অবস্থায় রাখতে চান তাহলে এটা দিয়ে তা সহজেই করা যাবে। ফলে আপনার ব্যাক্তিগত ডাটা থাকবে সুরক্ষিত। আরো জানতে চাইলে WinRAR এর সম্পর্কে  ইন্টারনেটে সার্চ করুন জানতে পারবেন। 

তবে একটি বিষয় Win RAR কিন্তু ফ্যি সফটওয়অর না। এটা একটা পেইড সফটওয়ার। তবে এর ভারশন গুলো ৩০ দিনের জন্য ফ্রি ব্যাবহার করার সুযোগ দেয়। ৩০ দিন পার হলে এটা বিভিন্ন সিগনাল দেওয়া শুরু করে। চেষ্টা করবেন ইন্টারনেট থেকে ফুল ভারশন খুজে ডাউনলোড করে নেওয়ার। 

যাই হোক আজকের প্রসেস টা যারা এখনো ক্লিয়ার না বা বুঝতে পারেন নি। তারা নিচের থেকে ভিডিও টি দেখে আসুন। আমি ভিডিওতে সরাসরি আপনাদেরকে সম্পূর্ন প্রসেসটি দেখিয়ে দিয়েছি। তাই যারা না বুঝবেন তারা ভিডিটি দেখবেন। 

ভিডিও লিংক: https://www.youtube.com/watch?v=kwFN_Bq_xBg




Post a Comment

0 Comments