আলি এক্সপ্রেস থেকে পন্য না পেলে টাকা রিফান্ড পাওয়ার ট্রিক্স


হ্যালো ভিউয়ার্স, সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আজকের টিপস লেখা। আলি এক্সপ্রেস মানে আলী এক্সপ্রেস ডটকম থেকে যারা কেনাকাটা করেন তাদের জন্য খারাপ সংবাদ হলো প্রডাক্ট হাতে না পাওয়া। চায়না থেকে যারা প্রডাক্ট আনেন তারা বিভিন্ন শিপিং মেথড ব্যাবহার করে প্রডাক্ট আনেন তার অধিকাংশই থাকে আন রেজিষ্টার্ড মেল। যার কারনে বাংলাদেশে প্রডাক্ট আসার পর তার আর হদিস থাকে না। কারন মুখ্য কারন হলো প্রডাক্ট গুলো ট্রাকিং হয় না। এবং আলিবাবা বাংলাদেশ অফিস নেই। এবং আলি এক্সপ্রেস থেকে আসা প্রডাক্টে আলি এক্সপ্রেস ট্যাক্স এর ঝামেলা থাকে। 

ফলে অনেক প্রডাক্ট আমরা পোষ্ট অফিসে হাতে পাই না। এক্ষেত্রে করার কিছুই থাকে না। আলি এক্সপ্রেস থেকে পন্য হাতে পাওয়া অনেকের কাছে ঝামেলার মনে হয়। ফলে তারা পোষ্ট অফিসেও খোজ নেন না। তখনই আপনার অর্ডার করা প্রডাক্ট টি মিসিং হয়ে যায়।  এছাড়া আলী এক্সপ্রেস ডটকম এর কিছু ২ নাম্বার প্রতারক সেলার আছে যারা মানুষকে প্রডাক্ট দেয়ার নামে ভুয়া ট্রাকিং নাম্বার দিয়ে রাখে। ফলে মানুষ আসল প্রডাক্ট পায় না। এবং রিফান্ডের রিকোষ্টে করে সবাই জিততে পারে না। এতে আলির সেলারের কিছু কিছু লাভ হয়। 

যেহেতু আমরা সবাই ফ্রি শিপিং ব্যাবহার করি সেহেতু  আমাদের পাসের্ল চায়নার ভেতরে ট্রাকিং হলেও চায়নার বাইরে বাংলাদেশে আসবার পর তার আর কোন ট্রাকিং থাকে না। যার কারনে বাংলাদেশে প্রডাক্ট মিসিং হয়। আর মিসিং হলে বা প্রডাক্ট হাতে না পেলে কিভাবে তার জন্য টাকা ফেরত নিবেন বা রিফান্ড নিবেন সেটাই আজ আপনাদেরকে দেখাবো। 

আলি এক্সপ্রেস রিফান্ড নিতে গেলে সবার প্রথমে যেই সমস্যা টা পোহাতে হয় সেটা হলো ডিসপুট আন করে সেখানে আলি এক্সপ্রেস কে বিস্তারিত বোঝানো। তাদেরকে সম্পূর্ন টা খুলে বলা। এখানে অনেকে ভুল কাজ টি করে থাকেন। ডিসপুটে শুধুমাত্র নট রিসিভড জাতীয় কথা লিখেই পার করে দেন। সেখানো করো প্রমান পত্র দেন না। যেমন কোনো ট্রাকিং নাম্বার, ট্রাকিং স্ক্রিনশট দেন না। যার কারনে আরো সমস্যায় পড়তে হয় আলি এক্সপ্রেসকে। কারন তারা আপনার ডিসপুট টি খুব ভালো ভাবে তদন্ত করে থাকে। সকলের উচিত প্রডাক্ট না পেলে সেটার সম্পর্কে বিস্তারিত ডিসপুটে লিখে দেওয়া, ট্রাকিং আইডি সহ সেটার স্ক্রিনশট অনলাইন থেকে কালেক্ট করে এভিডেন্সে আপলোড করা। মনে রাখবেন ডিসপুট অন করে সেটাতে যদি এভিডেন্ট আপলোড না করেন তাহলে আপনার ডিসপুট টি কখনোই জিতবে না। 

আলিএক্সপ্রেসে সঠিক ভাবে ডিসপুট ওপেন করার কিছু দিক নির্দেশনা:
১: ডিসপুট অন করার সময় যতটুকু সম্ভব কথা লিখে ডিসপুট ওপেন করা। মানে ডেসক্রিপশন এ যতটুকু সম্ভব তথ্য দিয়ে ডিসপুট অন করা। 
২: ডিসপুট অন করার পর আপনার প্রডাক্টের ট্রাকিং নাম্বার দিয়ে পার্সেল এপ থেকে ট্রাকিং করে সেটার ক্রিন শট ডিসপুট সেকশনে আপলোড করুন।
৩: ডিসপুট জেতার জন্য আপনি যে সত্য কথা বলছেন সেটা আলি এক্সপ্রেসকে বোঝানোর জন্য আপনার পোষ্ট অফিসের ছবি আপনি এভিডেন্স হিসেবে আপলোড দিতে পারেন।
৪: সেলার যদি আপনাকে ভুল ভাল প্রপোজাল দেয় ভুলেও সেটা একসেপ্ট করবেন। একবার ভুল করে একসেপ্ট করলে আপনি আর রিফান্ডও পাবেন না। প্রডাক্টও পাবেন না। এবং ২য় বার ডিসপুটও ওপেন করতে পাবেন না।েএই যায়গাতে মানুষ বিভান্ত হয়। কারন আলি এক্সপ্রেস এর সেলার আপনাকে বলবে তারা রিফান্ড করে দিবে। প্রপোজাল একসেপ্ট করার জন্য আপনাকে বলবে। কিন্তু তার উপরে লেখা থাকবে রিফান্ড ০০ ডলার। তখনই বুঝবেন। আপনাকে ঠকানোর চেষ্টা করছে সেলার। 
৫: সবসময় মনে রাখবেন সেলার ডিসপুটে যেই প্রোপজাল ই দিক না কেন সেটা রিজেক্ট করে দিবেন। তাহলে নির্দিষ্ট সময় পর আলি এক্সপ্রেস এর প্রতিনিধি আপনার ডিসপুট টি দেখে অটোকেমটিক আপনাকে টাকা টা ফেরত দিযে দিবে। 

আপনাদেরকে কিছু ট্রিক্স নিয়ে আজ রিফান্ডের ভিডিও টি করেছি। কিভাবে সেলার এর সাথে জিতবেন এবং রিফান্ড নিবেন। তাই ভিডিও টি মিস করবেন না। নিজে চেষ্টা করবেন সম্পূর্ন অংশ দেখবেন আরো কিছু জানার থাকলে তা ভিডিওর কমেন্ট বংক্স এ জানাবেন াথবা ফেসবুকে জানাবেন। 

ভিডিও লিংক: https://www.youtube.com/watch?v=7qGMyX-7oWk


Post a Comment

0 Comments